নাগরিকত্ব পেলে মিয়ানমারে ফিরবেন রোহিঙ্গারা

রোহিঙ্গারা তাদের প্রাপ্য নাগরিকত্ব পেলে নিজ দেশ মিয়ানমারে ফিরে যাওয়ার কথা জানিয়েছে। চীনের রাষ্ট্রদূত রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে গেলে এমনটা জানান তারা।

গত রোববার চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বান্দরবান জেলার নাইখ্যাংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের নো ম্যানস ল্যান্ডে থাকা রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে যান।

এসময় চীনের প্রতিনিধি দলকে রোহিঙ্গা নেতা দিল মোহাম্মদ বলেন, ‘মিয়ানমার সরকারকে বিশ্বাস করা যায় না। এর আগেও তারা অনেকবার বিশ্বাস ভঙ্গ করেছে। তাই সরাসরি নাগরিকত্ব ও সহায় সম্বল ফেরত দিলেই আমরা ফিরতে পারি।’

আরসা বা কোনো এনজিও সংস্থার লোকজন রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরতে অনুৎসাহিত করছে কিনা চীনের প্রতিনিধি দল জানতে চাইলে রোহিঙ্গা নেতারা বলেন, ‘মিয়ানমারের পক্ষ থেকে এমন গুজব ছড়ানো হচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে মিয়ানমারে ফেরত যেতে কেউ বাধা দিচ্ছে না। আমাদের দাবিগুলো মেনে নিলে এখনই চলে যেতে প্রস্তুত সবাই।’

জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) এর প্রাথমিক হিসাব অনুযায়ী, বান্দরবানের তুমব্রু খালের কাছে শূন্যরেখায় নো ম্যানস ল্যান্ড এ প্রায় এক হাজার ৩০০ রোহিঙ্গা পরিবার রয়েছে।

উখিয়া ও টেকনাফের অন্য ৩৪টি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নাগরিক সুবিধা থাকলেও এখানে কিছুই নেই। কোনো এনজিও এখানে কাজ করে না।

২০১৭ সালে ২৫ আগস্ট রাখাইনের ৩০টি নিরাপত্তা চৌকিতে একযোগে হামলার ঘটনায় মিয়ানমার থেকে প্রাণ বাঁচাতে প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়।

উখিয়া-টেকনাফের ৩৪টি শিবিরে এখন ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা অবস্থান করছে। জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী, এই সংখ্যা ১১ লাখ ৮৫ হাজার ৫৫৭। তাদের মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যাই বেশি।

Mustafa Shakir
আরও পড়ুনঃ
Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.