ঘন কুয়াশার চাঁদর মুড়িয়ে আগমন হয় শীতের।

টিনের চালায় টপ টপ করে শব্দ, আমাদেরকে জানিয়ে দেয় শীত এসেছে। নিরবে যদি শুনতে পারো কী সুন্দর করে একটার পর একটা শব্দ। এ যেনো আমাদের চিরো চেনা সেই শীতকাল।

ঋতুচক্রের আবর্তনে আসে শীত। হেমন্তের ফসল ভরা মাঠ যখন শূণ্য ও রিক্ত হয়ে পড়ে, তখন বোঝা যায় শীতকাল এর আগমন হয়েছে। উত্তরে হিমেল হাওয়া ভর করে হাড়ে কাপন লাগিয়ে সে আসে তার নিজস্ব রুপ নিয়ে।

কুয়াশার চাদরে ঘেরা প্রকৃতি তখন তার সমস্ত আবরন খুলে ধারন করে দীনহীন বেশ। প্রকৃতিতে শুরু হয় এক ভিন্ন সৌন্দর্য। এ সৌন্দর্য পূর্ণতা পায় শীতের সকালে।

ষড়ঋতুর দেশ রুপের যে তার নেই যে শেষ, সে যে আমার মাতৃভূমি বাংলাদেশ। ছয়টি ঋতুর মধ্যে শীতকাল হচ্ছে পঞ্চম এবং অন্যান্য ঋতুর সাথে এর কোন মিল নেই এটি সম্পূর্ণ ভিন্ন।

শীতের সকালে পাখিদের গান, কুয়াশায় ভরপুর সকাল ও দিগন্ত বিস্তিৃত সাদা শড়ী পড়ে কে যেন প্রকৃতিকে ঢেকে রাখে কুয়াশার আড়ালে। ঘড়ির দিকে থাকালে বোঝা যায় বেলা হয়েছে। সকালে বিছানা থেকে উঠতেই মন চায় না।

শীতকালে বিভিন্ন দেশ থেকে বিভিন্ন জাতের পাখির আগমন হয়। পাখিগুলা আমাদের দেশের সৌন্দর্যের সাথে আরো সৌন্দর্য সৃষ্টি করে। যাদেরকে আমরা বলি অতিথি পাখি।

শীতে ত্বকের যত্নঃ শীত কালে ত্বকের যত্ন একটু বেশি করতে হয়। কারণ শীত কাল হচ্ছে শুষ্ক ও রূক্ষ। শীতে ত্বকে একটা টান টান ভাব হয়। এতে যদি যত্ন না নেন তাহলে দেখতে অনেকটাই বিশ্রী দেখাবে, আপনি নিজেই অসস্তিতে ভুগবেন।

আর এই সব সমস্যা থেকে বাচাঁর জন্য অনেকেই অনেক ধরনের প্রসাধনী ব্যাবহার করে থাকেন। যাতে করে একটু সুন্দর দেখায়, ঝর ঝরে দেখায়।

শীতকাল হচ্ছে সম্পূর্ন ভিন্ন একটি ঋতু, এর সাথে কোন ঋতু মিল নেই।

লেখকঃ আবিদা সুলতানা
আরও পড়ুনঃ
Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.