বাংলাদেশকে ‘ হ্যাপি নিউ ইয়ার ’ গিফট দিলো ভারত

বছরের শুরুতেই বাংলাদেশকে ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ গিফট দিলো ভারত। ঢাকাস্থ ভারতীয় দূতাবাস থেকে ভিসা প্রত্যাশী বাঙালিদের জন্য এলো সুখবর। বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় করতে বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে নতুন করে চালু হচ্ছে ছয়টি ভিসা আবেদন কেন্দ্র। ফলে সহজ হচ্ছে বাংলাদেশিদের ভারত যাত্রা।

বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সাম্প্রতিককালে স্বল্পখরচে বহুবিচিত্র দেশ প্রতিবেশী ভারতে বেড়াতে যাওয়ার প্রবণতা বেড়েছে। চিকিৎসা ও শপিংয়ের জন্যও বাঙালি এখন ভারত নির্ভর।

ভারতীয় হাই কমিশন সূত্রে জানা গেছে, আগামী ৬ জানুয়ারি থেকে ঠাকুরগাঁও ও বগুড়ায় এবং ১২ জানুয়ারি থেকে কুমিল্লা, নোয়াখালী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও সাতক্ষীরায় ভিসা আবেদন কেন্দ্রগুলো চালু হতে যাচ্ছে।

ইন্ডিয়ান ভিসা

গত বুধবার (২ জানুয়ারি) ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশন থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বর্তমানে বাংলাদেশের বিভিন্ন অংশে নয়টি ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্র চালু রয়েছে।  নতুন করে ছয়টি ভিসা আবেদন কেন্দ্রসহ এই সংখ্যা দাঁড়ালো ১৫টিতে। প্রান্তিক ও দূরবর্তী এলাকাগুলোতে বসবাসকারী বাংলাদেশি নাগরিকদের ভারতীয় ভিসা চাহিদা পূরণ ও ভিসাপ্রাপ্তি সহজতর করার লক্ষ্যে এই ছয়টি ভিসা আবেদন কেন্দ্র চালু করা হচ্ছে।

ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্কের সহযোগিতায় ভারতীয় হাই কমিশনের দীর্ঘ প্রচেষ্টারই  প্রতিফলন নতুন এই ভিসাকেন্দ্রগুলো। জানা গেছে, বিদেশগামী রোগীদের ৮০ শতাংশই যান ভারতে। অন্যরা যান, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশে। তাদের মধ্যে অনেকেই ভ্রমণ ভিসা নিয়ে চিকিৎসার জন্য বিদেশে যান।

এদিকে সম্প্রতি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবরে প্রকাশ, বিদেশিদের আকৃষ্ট করতে ভিসা প্রক্রিয়া আরও সহজ করার কথা ভাবছে ভারত সরকার। এ লক্ষ্যে ই-ভিসার সংখ্যা বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দিন দিন ই-ভিসা জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। ২০১৫ সালে পাঁচ লাখ ১৭ হাজার ই-ভিসা ইস্যু করা হয়েছিল।

  আর ২০১৭ সালে সেই পরিমাণ বেড়ে দাঁড়ায় ১৯ লাখ একশতে। ২০১৮ সালের জুলাই পর্যন্ত ১১ লাখ ১৬ হাজার ই-ভিসা ইস্যু করা হয়।  ভারতের কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রক সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালে মোট দুই লাখ ২১ হাজার ৭৫১ জন বাংলাদেশি চিকিৎসার কারণে ভারতে এসেছিলেন।

গত বছর বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে উঠে আসে- ভারতে প্রতি বছর যে লক্ষ লক্ষ বাংলাদেশী পর্যটক আসছেন ও যাদের সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে, তারা ভারতে এসে ঠিক কীরকম টাকাপয়সা খরচ করেন? ভারতের পর্যটনমন্ত্রীর মতে, পশ্চিমা পর্যটকদের চেয়ে বাংলাদেশীদের খরচ করার পরিমাণ কিন্তু কোনও অংশে কম নয়। ঢাকার ভারতীয় দূতাবাস থেকেই এখন বিশ্বের যে কোনও ভারতীয় মিশনের চেয়ে বেশি ভিসা মঞ্জুর হয় আর প্রতি বছরই অন্তত ১৬ থেকে ১৭ লক্ষ বাংলাদেশী এখন ভারতে আসছেন।

এশিয়ার সর্ববৃহৎ শপিংমল যমুনা ফিউচার পার্ক এখন বিশ্বের বৃহত্তম ভারতীয় ভিসা কেন্দ্র। সাড়ে ১৮ হাজার বর্গফুট আয়তনের এ কেন্দ্রটিতে ৭০০ জনের মতো বসার ব্যবস্থা রয়েছে।

ভারত ভ্রমণে ভিসা পেতে যা করতে হবে:

কথায় আছে একজন ভ্রমণ প্রিয় মানুষ পুরো ভারত ঘুরে দেখলেই নাকি পৃথিবীর সব মহাদেশ ঘোরার আমেজ পাওয়া যায়।ইতিহাস আর ঐতিহ্যের সম্মিলনসহ দেশটিতে রয়েছে অসংখ্য দর্শনীয় পর্যটন স্পট। সাধ ও সাধ্যের মধ্যেই দেখতে পারবেন নদী, সমুদ্র, পাহাড় আর মরুভূমির নজর কাড়া দৃশ্য। সেই সঙ্গে ভারত অধ্যুষিত ভূস্বর্গ কাষ্মিরও।

আবেদনের আগে:
ভারতীয় ভিসার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হয়। ভিসা আবেদনের বেশ কিছু তথ্য www.ivacbd.com সাইটে পাওয়া যাবে। এ ছাড়া www.hcidhaka.org ওয়েব সাইটের বাম পাশে ‘Guidelines for filling Online Visa Application Form’ এবং FAQ on Online Visa বিভাগে ক্লিক করে আরো বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন আগ্রহীরা।

আবেদন প্রক্রিয়া:
প্রথমে http://passport.gov.in/visaindia/ ঠিকানায় প্রবেশ করলেই একটি আবেদন ফরম আসবে। প্রয়োজনীয় সঠিক তথ্য দিয়ে ফরম পূরণ করে save and continue বাটনে ক্লিক করতে হবে।

এরপর সয়ংক্রিয়ভাবে আরো দুটি ফরম আসবে। একইভাবে ফরম দুটি পূরণ করে save and continue বাটনে ক্লিক করতে হবে।

এখানে বলে রাখা ভালো, অনলাইনে ফরম পূরণের পাসপোর্ট অনুযায়ী যাবতীয় তথ্য এবং কোনো ধরনের ভিসা (ট্যুরিস্ট, মেডিকেল কিংবা ব্যবসা) কতদিনের ভিসা, কোন রুটে যাবেন, ইন্ডিয়ান একজনের রেফারেন্স এবং হোটেলের তথ্য পূরণ করতে হবে।

ফরমটি সঠিকভাবে পূরণ করার পর উপরে থাকা অস্থায়ী আইডি নম্বরটি অবশ্যই সংরক্ষণ করতে হবে এবং ফরম পূরণ হলে একটি ফাইল নম্বর দেওয়া হবে। যা দিয়ে পরবর্তী প্রসেসিং যেমন ফাইলটি প্রিন্ট করতে কাজে লাগবে।

এই কাজগুলো খুব সহজ কিন্তু কিছুটা সমস্যায় পড়তে হবে ভারতীয় হাইকমিশনে অ্যাপয়েন্টমেন্টের তারিখ পেতে। কারণ সাধারণত চাইলেই এই তারিখ পাওয়া যায় না।

আমাদের ভুল থাকতে পারে । প্রয়োজনে এডিট করা হবে । ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন । 
সংরক্ষিত অস্থায়ী আইডি নম্বর, ফাইল নম্বর এবং জন্ম তারিখ ব্যবহার করে অ্যাপয়েন্টমেন্টের তারিখ পেতে বারবার চেষ্টা করতে হবে।

অ্যাপয়েন্টমেন্টের তারিখ পাওয়ার পর পূরণ করা ফাইলটি প্রিন্ট করে অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে নির্দিষ্ট তারিখে ভিসা অফিসে যোগাযোগ করতে হবে।

ভিসার জন্য ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশন, রাজশাহী ও চট্টগ্রামে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনের ইন্ডিয়ান ভিসা অ্যাপ্লিকেশন সেন্টারে (আইভিএসি) আবেদন জমা দিতে হবে।

যে বিষয়গুলো মনে রাখতে হবে:
১. আবেদনের তারিখে পাসপোর্টের মেয়াদ ছয় মাস বা তার বেশি থাকতে হবে । সঠিক নিয়মে ফর্ম পূরন করতে হবে । আপনার ফর্ম পূরনের সময় একটি তারিখ জানতে চাইবে আপনি কবে ভিসা ফর্ম জমা দিবেন । আপনার সুবিধা মত তারিখ নির্বাচন করুন ।

২. ব্যাংক থেকে ১৫০ ডলার কিংবা তার বেশী পাসপোর্ট এ এন্ডোস করা থাকতে হবে। সাথে সার্টিফিকেট নিতে ভুলবেন না । যদি ডলার এন্ডোস না করেন তবে আপনার গত তিন মাসের ব্যাংক এস্টেটম্যান্ট জমা দিতে হবে। ব্যাংকে কমপক্ষে ২০০০০/= ( বিশ হাজার টাকা ) ব্যালেন্স রেখে ষ্ট্যাটমেন্ট জমা দিবে ।

৩. নাগরিকত্ব সার্টিফিকেট বা ন্যশনাল আইডি কার্ডের ফটোকপি নিবেন । যদি স্কুল , কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বা অফিসের আইডি থাকে তাও ফটোকপি জমা দিবেন । (একটা মূল কপি নিয়ে যাবেন যদি লাগে তারা নিবে । কাজ শেষে ফেরত দিবে ।)

৪. আপনি কি করেন তা প্রমানের জন্য যে কোন সার্টিফিকেট নিবেন (ব্যবসা হলে আপনার ট্রেড লাইসন্সের ফটোকপি কিংবা চাকুরী করলে যথাযত পক্ষের থেকে লেটার নিতে হবে। উভয়ক্ষেত্রে ভিজিটিং কার্ড নিবেন) । অফিস থেকে ছুটি মঞ্জুরের অনুমতিপত্র ও জমা দিতে হবে ।

৫. কমিশনার বা চেয়ারম্যানের সনদপত্র হলে চলবে । যে বাড়ির ঠিকানা আপনার পার্সপোটে উল্লেখ করা আছে সেই বাড়ির বিদ্যুৎ, পানি, ফোন, গ্যাস বিলের ফটোকপি জমা দিন । একটা মূল কপি নিয়ে যাবেন যদি লাগে তারা নিবে । কাজ শেষে ফেরত দিবে ।

৬. ট্যুরিষ্ট ভিসা তিন মাসের জন্য প্রদান করা হয় । এটার মেয়াদ কোন ভাবেই বাড়ানো যায় না ।

৭. চিকিৎসা সংক্রান্ত ভিসার জন্য যেতে হলে ডাক্তারের নাম , ভিজিটিং কার্ড, এপয়েন্টম্যান ডেট, রুগীর সকল কাগজপত্র, বাংলাদেশের ডাক্তারের রের্ফাড এর কাগজ জমা দিতে হবে । চিকিৎসা সংক্রান্ত ভিসার মেয়াদ বাড়ানো যায় ।

৮. অফিসিয়াল আমন্ত্রন পেলে সেই আমন্ত্রন পত্রে কপি জমা দিতে হবে ।

৯. ট্রানজিট ভিসার ক্ষেত্রে নেপাল বা ভুটানের ভিসা আগে নেয়াটা ভাল । সে ক্ষেত্রে আপনি ৭২ (বাহাত্তর ঘন্টা) ভারতে অবস্থানের সুযোগ পাবেন ।

১০. ভিসা ফি-৬০০/= ( চারশত টাকা মাত্র )

১১. ভিসা ফর্ম জমা নেয়ার সময় সকাল ৮টা থেকে বেলা ১১টা ( সময় পরির্বতন করা হয় )

১২. পার্সপোট ফেরত দেয়ার সময় বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা

১৩. ভিসা সেন্টারে ফোন ব্যবহার নিষেধ । ভিসা সেন্টারে বড় কোন ব্যাগ সাথে রাখা যাবে না ।

১৪. ছবির মাপ ২ ইঞ্চি বাই ২ ইঞ্চি হতে হবে, বেশী পুরানো হলে চলবে না। বর্তমান চোহারা ফুটে উঠতে হবে ! কমপক্ষে বিশ দিন আগে ভিসার জন্য আবেদন করা ভাল ।

বাংলাদেশীদের কি কি ক্যাটাগরিতে ভারতীয় ভিসা দেয়া হয়:
১. বিজনেস ভিসা

২. সিঙ্গেল এন্টি ভিসা

৩. সিঙ্গেল এন্টি ট্র্যানজিট ভিসা

৪. ডাবল এন্টি ট্র্যানজিট ভিসা

৫. মেডিক্যাল / মেডিক্যাল এটেডডেন্ট

৬. সাংবাদিক

৭. ষ্টুডেন্ট

৮. রির্সাচ ভিসা

৯. কনফারেন্স

১০. এম্পমেন্ট ভিসা

১১. ট্রেনিং


এই ঠিকানা গুলোতে ভিসা ফর্ম জমা নেয়া হয় :
This Are Indian Visa Application Center ( IVAC) in Bangladesh

  1. IVAC, Gulshan. Dhaka 
    House # 12, Road # 137,
    Gulshan-1 Dhaka -1212, Bangladesh.
    Tel: 00-88-02-9893006, 8833632 Fax: 00-88-02-9863229
    Email: info@ivacbd.com Website: www.ivacbd .com
  2. IVAC, Motijil .Dhaka 
    State Bank of India
    Shadharon Bima Bhaban, 24-25, Dilkusha C/A,
    Tel: +88-02-9553371, 9554251 Fax: +88-02-9563991

 Email: info@ivacbd.com Website: www.ivacbd .com

3. IVAC, Chittagong 
State Bank of India
2111, Zakir Hossain Road, Habib Lane, Opposite Holy Crescent 
Hospital, Chittaghong
Tel : 00-88 -031-2551100
Fax: 00-88-031-2524492
E-mail : ivacctg@colbd.com
Website : www.ivacbd .com

4. IVAC, Sylhet 
State Bank of India
Rahim Tower, Subhanighat Biswa Road,
Sylhet 3100, Bangladesh.
Tel: 00-88-0821 – 719273
Fax: 00-88-0821-719932
E-mail: info@ivacbd.com
Website : www.ivacbd.com

5. Asst. High Commission of India, Rajshahi 
284/II, Housing Estate Sopura,
Upashahar, Rajshahi
Telephone No- 00-88-0721-861213/211/215
Fax No : 00-88-0721-861212
E-mail: hoc.rajshahi@mea.gov.in


নিচের ঠিকানা গুলো হাইকমিশনের অফিস । এখনে ভিসা ফর্ম জমা নেয়া হয় না । 
This Are Office of High Commission of India, Bangladesh :

1. High Commission of India,Dhaka 
“ Lake View ”
House # 12, Road # 137,
Gulshan-1 Dhaka -1212,
Bangladesh.
Tel: 00-88-02-9893006, 8833632
Fax: 00-88-02-9863229
Email: info@ivacbd.com
Website: www.ivacbd.com

2. Asst. High Commission of India, Chittagong 
Postal Address: Habib Lane, 2111, Zakir Hossain Road, 
Khulshi, Chittagong.
E-mail: ahc@bbts.net
Website: www.ahcictg.net
Telephone no.: 0088-031-654201, 654148
Fax no.: 0088-031-654147

3. Asst. High Commission of India, Rajshahi 
284/II, Housing Estate Sopura,
Upashahar, Rajshahi
Telephone No- 00-88-0721-861213/211/215
Fax No : 00-88-0721-861212
E-mail: hoc.rajshahi@mea.gov.in

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.