ফ্রান্স এ নতুন বা পুরাতন (১২ বছর আগে আর বর্তমান)।

ফ্রান্স এ একসময় সময় এ দেশে আমিও নতুন ছিলাম। একটা সরকারি ডমিসিলে নিয়ে যাবার লোক ছিলনা। পুরনোদের কাছে কাজ চাইলে বলতো ২০ ইউরোর সিডি কিনে ব্যবসা শুরু করো।অবশ্য ঐ সময় ব্যবসা করে অনেকেই কাজ থেকে ভালো ইনকাম করতো!

অহংকার করে বলছিনা রাস্তায় খাড়া হতে পারিনি। কেস মামলা বিষয় অনেক বিশেষজ্ঞের কাছে গেলাম আজ কাল বলে অনেকদিন হাটার পরে কয়েকটি বানান শুদ্ধ করে দেয়া ছাড়া নতুন কিছু পেলামনা। নিজে সব লিখলাম আর ঐ বানান শুদ্ধীর জন্য কিছু গুনতে হলো।
কেস গেল অনেক প্রচেষ্টায় কাজ পেলাম। সেই কাজ থেকে বৈধতা পেলাম এ দেশে থাকার,কিন্তু মূল্যে দিতে হলো দশটি বছর।

কাগজহীন এই দীর্ঘ সময়ে নতুনদের জন্য অনেক করেছি। নিজের খাটের একপাশে জায়গা দিয়েছি। খাবার থেকে শুরু করে পকেট খরচ। কাজ নিজ হাতে শিখিয়েছি তারও সংখ্যা অনেক। কিন্তু এর মাঝে অনেকেই মনে করেছে তাদের কাজে নিয়ে প্রফিট নিচ্ছি। আড়ালে গালি দিয়েছে। আবার অনেকের দোআও পেয়েছি। আজ তাদের মধ্যে অনেকেই সেই কাজ থেকে এ দেশের বৈধ কাগজদারী।

উপকার করলে অনেক সময় গালি খেতে হয়। ফ্রান্সে উপকার করে গালি খাবার সংখ্যা বেশি। মানুষ তাদের অবস্থা পরিবর্তনের সাথে সাথে পেছনের দিনগুলির কথা ভুলে যায়। যারা এক সময় কিছুই জানতনা, আজ তাদের কাছ থেকে অনেক কিছু শিখি। কাগজ ছিলনা কাজ ছিলনা যোগাযোগ ছিল আজ সব আছে, শুধু সম্পর্ক নেই।

কথা গুলি নিজেকে প্রচারের জন্য শেয়ার করছিনা। শেয়ার করছি এ জন্য নতুনরা যতই অভিযোগ দেন এ দেশে পুরাতনরা হেল্পফুল না কথাটা সঠিক নয়। আজ থেকে ১০/১২ বছর আগের ফ্রান্স এখন নেই। এই গ্রুপে প্রশ্ন করলে সাথে সাথে উত্তর পাওয়া যায়। কাজ বাসা থেকে বৈধ হবার বিভিন্ন তথ্য এখানেই মিলে। এখন বিনা পারিশ্রমিকে বাংলাদেশী দোভাষী ও পাওয়া যায় যা ১০/১২ বছর আগে ছিলনা।

শুধু শুধু সমালচনা নয় পুরনোদের সম্মান করি আর নতুনদের স্বাগতম। আজকের খারাপ পরিস্থিতি সারা জীবন থাকবেনা। অবস্থার উন্নতির সাথে যেন আমরা অতীত-কে না ভুলে যাই!
সকল প্রবাসী ভাই ভালো থাকবেন।

ছরওয়ার হোসেন

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.