সিলেটের জানা ও অজানা তথ্য


সিলেট জেলা ও সিলেট বিভাগঃ

সিলেটের তথ্যঃ সিলেট জেলা ১৭৭২ সালের ১৭ মার্চ প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৮৭৪ সাল পর্যন্ত এ জেলা ঢাকা বিভাগের অন্তর্ভূক্ত ছিল। ঐ বছরই সিলেটকে নবসৃষ্ট আসাম প্রদেশের অর্ন্তভূক্ত করা হয়। দেশ ভাগের সময় ১৯৪৭ সালে গণভোটের মাধ্যমে সিলেট জেলা তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের অন্তর্ভূক্ত হয়। সিলেট জেলা তখন চট্টগ্রাম বিভাগের আওতাধীন ছিল। ১৯৮৩-৮৪ সালে বৃহত্তর সিলেট জেলাকে ৪টি নতুন জেলায় বিভক্ত করা হয়।

প্রতিষ্ঠাকালে সিলেট জেলাসহ বৃহত্তর সিলেটের অপর তিন জেলা চট্টগ্রাম বিভাগের অন্তর্গত ছিল। ১৯৯৫ সালে বৃহত্তর সিলেটের ৪ টি জেলা (সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ) নিয়ে পৃথক সিলেট বিভাগ যাত্রা শুরু করে। বিভাগের প্রথম কমিশনার ছিলেন জনাব মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান। বর্তমান কমিশনার ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম।

ভৌগোলিক বিবরণঃ

অবস্থানঃ

সিলেট বিভাগ ২৩°৫৮´উওর অক্ষাংশ থেকে ২৫°১২´উওর অক্ষাংশ এবং ৯০°৫৬´পূর্ব দ্রঘিমাংশ থেকে ৯২° ৩০´পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যে অবস্থিত। এর উত্তরে ভারতের মেঘালয় রাজ্য, দক্ষিণে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য ও বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা, পূর্বে ভারতের আসাম ও ত্রিপুরা রাজ্য, পশ্চিমে নেত্রকোনা ও কিশোরগঞ্জ জেলা।

আয়তনঃ           

সিলেট বিভাগের মোট আয়তন ১২,৫৫৮ (বার হাজার পাঁচশত আটান্ন) বর্গ কিলোমিটার। এর অন্তর্গত সিলেট জেলার আয়তন ৩,৪৫২বর্গ কিলোমিটার, সুনামগঞ্জ জেলার আয়তন ৩,৬৭০ বর্গ কিলোমিটার, হবিগঞ্জ জেলার আয়তন ২,৬৩৭ বর্গকিলোমিটার, মৌলভীবাজার জেলার আয়তন ২,৭৯৯ বর্গ কিলোমিটার। আয়তনের দিক থেকে এ বিভাগের সর্ববৃহৎ জেলা সুনামগঞ্জ এবং সবচেয়ে ছোট জেলা হবিগঞ্জ।      

ভূপ্রকৃতিঃ          

সিলেট বিভাগের উত্তর, পূর্ব ও দক্ষিণ দিকে উঁচু উঁচু পর্বত শ্রেণীর পাহাড়ী অঞ্চল। মূলত: মেঘালয়, খাসিয়া, জৈন্তিয়া, ত্রিপুরার পাহাড়ের মাঝামাঝি বিস্তৃর্ণ এলাকাটিই হচ্ছে সিলেট বিভাগ বা প্রাচীন শ্রীহট্ট। অভ্যন্তরীন সীমাভূমি বেশির ভাগ সমতল প্রান্তর। স্থানে স্থানে জঙ্গল ও বালুকাময় ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র টিলা রয়েছে।

বিভাগের অভ্যন্তরে বহু নদী প্রবাহিত। প্রকৃতি কন্যা সিলেট হল পাহাড়, নদী ও হাওর ঘেরা সবুজ শ্যামল প্রাকৃতিক ভূমি। সিলেট বিভাগের অভ্যন্তরে পাহাড়গুলোয় বিস্তৃত চা বাগান।

প্রশাসনিকঃ

1.     সংসদীয় আসন         : মোট ১৯ টি (সিলেট: ০৬টি; সুনামগঞ্জ :০৫টি ; মৌলভীবাজার: ০৪টি; হবিগঞ্জ: ০৪টি)

2.     উপজেলা                 : মোট ৩৯টি (সিলেট: ১৩টি; সুনামগঞ্জ : ১১টি ; মৌলভীবাজার: ০৭টি; হবিগঞ্জ: ০৮টি)

3.     সীমান্তবর্তী উপজেলা  : মোট ১৯ টি (সিলেট: ০৬টি; সুনামগঞ্জ : ০৬টি ; মৌলভীবাজার: ০৫টি; হবিগঞ্জ: ০২টি)

4.     থানা                      : মোট ৪৪ টি (সিলেট: ১৭টি; সুনামগঞ্জ : ১১টি ; মৌলভীবাজার: ০৭টি; হবিগঞ্জ: ০৯টি)

স্থানীয় সরকারঃ

1.      সিটি কর্পোরেশন        : ০১ টি (সিলেট সিটি কর্পোরেশন)

2.      পৌরসভা            : মোট ১৯ টি (সিলেট: ০৪টি; সুনামগঞ্জ : ০৪টি ; মৌলভীবাজার: ০৫টি; হবিগঞ্জ: ০৬টি)

3.     ইউনিয়ন             : মোট ৩৩৬ টি (সিলেট: ১০৫টি; সুনামগঞ্জ : ৮৭টি ; মৌলভীবাজার: ৬৭টি; হবিগঞ্জ: ৭৭টি)

জনসংখ্যা বিষয়কঃ

1.    মোট জনসংখ্যা       : মোট ৯৮,০৭,০০০ জন (সিলেট: ৩৪,০৪,০০ জন; সুনামগঞ্জ : ২৪,৪৩,০০০জন; মৌলভীবাজার: ১৯,০১,০০০জন; হবিগঞ্জ: ২০,৫৯,০০জন)

2.      গ্রামে জনসংখ্যা      : ৭২,৩৪,৫২৩ জন (৮৭.৫৭%)

3.     শহরে জনসংখ্যা     : ১০,২৭,০৯১ জন (১২.৪৩%)

4.       জনসংখ্যার ঘনত্ব     : প্রতি বর্গ কিলোমিটারে ৭০৩ জন

5.      উপজাতি             : মনিপুরি, খাসিয়া, গারো, পাত্র, লুসাই, হাজং, সাওতাল, ত্রিপুরা, টিপরা

6.      উপজাতি জনসংখ্যা  : ৬৬,৬২৪ জন (সিলেট: ১০,৬২৯জন; সুনামগঞ্জ: ৭,২৮০জন; মৌলভীবাজার:৪৪,৬৩৯ জন; হবিগঞ্জ: ৪,০৭৬জন)

শিক্ষা সংক্রান্ত তথ্যঃ

1.      শিক্ষার হার         : ৪৯.৩২%জন (সিলেট: ৫১.২%; সুনামগঞ্জ : ৫০.০০%; মৌলভীবাজার: ৫১.১%; হবিগঞ্জ: ৪৫.০০%)

2.     শিক্ষা প্রতিষ্ঠান     : মোট প্রতিষ্ঠান ৬,২৪২ টি

ক্রমিক প্রতিষ্ঠানের নাম সিলেট সুনামগঞ্জ হবিগঞ্জ মৌলভীবাজার মোট
০১ সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ০২ ০২
০২ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ০৫ ০৫
০৩ সরকারি মেডিকেল কলেজ ০১ ০১
০৪ বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ০৫ ০৫
০৫ সরকারি ভেটেরিনারী কলেজ ০১ ০১
০৬ তিবিবয়া কলেজ ০১ ০১
০৭ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট ০১ ০১ ০২
০৮ ভোকেশনাল ইন্সটিটিউিট ০১ ০১ ০১ ০১ ০৪
০৯ ক্যাডেট কলেজ ০১ ০১
১০ সরকারী কলেজ ০৫ ০৩ ০৩ ০৩ ১৩
১১ বেসরকারি কলেজ ৩৯ ১৪ ১৯ ২১ ৯১
১২ আইন কলেজ ০২ ০২
১৩ সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ ০১ ০১
১৪ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ০৬ ০৫ ০৬ ০৩ ২০
১৫ বেসরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ২৭৭ ১৪৯ ১০০ ১৫৫ ৬৮১
১৬ জুনিয়র উচ্চ বিদ্যালয় ৩৬ ২২ ২০ ১৮ ৯৬
১৭ সরকারি মাদ্রাসা ০১ ০১
১৮ বেসরকারি মাদ্রাসা ১৭৫ ৬৫ ৫৩ ৫৪ ৩৪৭
১৯ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ১,০৬৬ ৮৫৬ ৭৩২ ৬৯২ ,৩৪৬
২০ বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ২৯৫ ৫৭৬ ২৯৪ ২৮০ ১৪৪৫
২১ ইবতেদায়ী মাদ্রাসা ৫৩ ৫০ ২২ ৫২ ১৭৭
মোট ১৯৭৪ ,৭৪১ ,২৫০ ১২৮০ ৬২৪২

 প্রধান নদ-নদী :

             (ক) সুরমা, কুশিয়ারা, সারি, পিয়াইন(সিলেট অঞ্চল)

             (খ) কালনী, যাদুকাটা, বাউলাই, কংস(সুনামগঞ্জ অঞ্চল)

             (গ) মনু, ধলাই (মৌলভীবাজার অঞ্চল)

             (ঘ) খোয়াই, সুতাং, রত্না (হবিগঞ্জ অঞ্চল)।

উল্লেখযোগ্য স্থল বন্দর:  ভোলাগঞ্জ, তামাবিল, শেওলা, সুতারকান্দি, জকিগঞ্জ ও চাতলা।

উল্লেখযোগ্য  হাওর:

(ক) হাকালুকি (কুলাউড়া-বড়লেখা, মৌলভীবাজার, গোলাপগঞ্জ-ফেঞ্চুগঞ্জ, সিলেট)

(খ) হাইল হাওর (শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার)

(গ) টাংগুয়ার হাওর (তাহিরপুর-ধর্মপাশা, সুনামগঞ্জ)

(ঘ) শনির হাওর (তাহিরপুর, সুনামগঞ্জ)

(ঙ) দেখার হাওর (দক্ষিণ সুনামগঞ্জ, সদর, সুনামগঞ্জ)

(চ) ঘুঙ্গিয়াজুড়ি, মকার হাওর (হবিগঞ্জ সদর, বাহুবল, লাখাই, নবীগঞ্জ ও বানিয়াচং, হবিগঞ্জ)।

সিলেটের চা বাগান

বাংলাদেশে সিলেটিদের অবদানঃ

 ৩৬০ আউলিয়া, শাহজালাল রহঃ, শাহপরান রহঃ পূণ্যভূমি সিলেট । ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের পুরোধা ব্যাক্তিত্বদের অন্যতম ছিলেন সিলেটের সন্তান বিপিন চন্দ্র পাল। ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে সেনাবাহিনীর সর্বাধিনায়ক ছিলেন সিলেটের সন্তান এম এ জি ওসমানী। সিলেটি লন্ডন প্রবাসীরা বাংলা টাউন গঠন করে ব্রিটেনের বুকে গড়েছেন
এক টুকরো ছোট্ট বাংলাদেশ । স্বাধীন বাংলাদেশের ধ্বংসপ্রাপ্ত অর্থনীতিকে জাগিয়ে তোলার রুপকার সিলেটের সন্তান এম সাইফুর রহমান । সর্বাধিক সংখ্যক বাজেট ঘোষণা করেন তিনি। সিলেটের আরও দুই কৃতি অর্থনীতিবিদ শাহ এম এস কিবরিয়া ও আবুল মাল আব্দুল মুহিত। বাংলা সাহিত্যের যাদুকর সৈয়দ মুজতবা আলী, সিলেটের সন্তান। বাংলাদেশে নিযুক্ত একমাত্র ব্রিটিশ-বাংলাদেশী হাইকমিশনার ছিলেন সিলেটের সন্তান আনোয়ার চৌধুরি । ব্রিটেনের পার্লামেন্টের প্রথম বাংলাদেশী এমপি সিলেটি বংশদ্ভূত রুশনারা আলী। আমেরিকার পার্লামেন্টের প্রথম বাংলাদেশী সিনেটর সিলেটি (বিয়ানীবাজার) বংশদ্ভূত হাসি্ম ক্লার্ক । ব্রিটেনের টাওয়ার হ্যামলেটসের সাবেক মেয়র সিলেটের সন্তান লুৎফুর রহমান । একমাত্র বাংলাদেশী হিসেবে ব্রিটেনের রাণীর কাছ থেকে নাইট উপাধি নেন সিলেটের সন্তান স্যার ফজলে হাসান আবেদ। ব্রিটেনের রাণীর অফিশিয়াল শেফের দায়িত্ব কৃতিত্বের সাথে পালন করেছেন সিলেটের সন্তান টমি মিয়া । বিশ্ব মাতালেন বিয়ানীবাজারের মেয়ে গ্রেট ব্রিটিশ বেক অফ ২০১৫-এর বিজয়ী নাদিয়া হোসাইন।  বিশ্বের সবচেয়ে বড় এনজিও সংস্থা ব্র্যাক এর প্রতিষ্ঠাতা সিলেটের সন্তান স্যার ফজলে হাসান আবেদ। পৃথিবীর শ্রেষ্ঠজীন সাইন্টিস্টদের অন্যতম সিলেটের সন্তান ডঃ আবেদ । চিকিৎসা বিজ্ঞানী ফ্লোরা-ভাইরাসের আবিষ্কারক সায়মা আমিন সিলেটের (বিয়ানীবাজার) সন্তান ।

সিলেটিদের পাঠানো রেমিটেন্স গত ৪০ বছর ধরে রুগ্ন বাংলাদেশের অর্থনীতিকে বাঁচিয়ে রেখেছে । বাংলাদেশের সংসদ নির্বাচনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আসন সিলেট ১ আসন। বলা হয় এ আসনে নির্বাচিতের দলই সরকার গঠন করে । জাতিসংঘে প্রথম ও একমাত্র বাংলাদেশি স্পিকার সিলেটের সন্তান হুমায়ুন রশিদ। বাংলাদেশের প্রথম চীফ অব প্রটোকল পাওয়া কূটনীতিক হলেন সিলেটের সন্তান ফারুক চৌধুরী ।

লন্ডন অলিম্পিক ২০১২ তে অফিশিয়াল ফুড সার্ভ করার দায়িত্ব ছিল লন্ডনে অবস্থিত সিলেটি রেস্টুরেন্টের। বাংলাদেশের প্রথমটেস্ট জয়ের নায়ক সিলেটের সন্তান এনামুল হক জুনিয়র। বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম বল করেন সিলেটের সন্তান হাসিবুল হোসেন শান্ত। ভারতের বিপক্ষে প্রথম ওডিআই হান্ড্রেড করেন সিলেটের সন্তান অলক কাপালি। জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় রাজীন সালেহ , অলক কাপালী , তাপশ এবং এনামুল হক জুনিয়র, নাজমুল হুসেন ও  আবুল হোসেন রাজু এরা সকলেই  সিলেটের সন্তান ।

বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক মানের সংগীত শীল্পি ধরা হয় সিলেটের সন্তান শুভ্র দেবকে। সুবীর নন্দী, হাসন রাজা, শাহ আব্দুল করিম, রাধা রমন, দূরবীন শাহ, আরকুম শাহ্, শীতালং শাহ, শাহনূর সালমান শাহ, দীনহীন , সেলীম চৌধুরি, শুভদেব, কালা মিয়া, কারী আমীর উদ্দিন, শফিকুন নূর, মুজীব সরকার, রুহী ঠাকুর, সিরাজ উদ্দিন, আশীক, মামুন, সাজ্জাদনূর সকলেই সিলেটের সন্তান । বাংলা রেপ সংগীতের জনক সিলেটের সন্তান ফকির লাল মিয়া।

পর্যটনে বাংলাদেশের একমাত্র স্বকীয়তা ধরে রাখতে পারা ভূমি সিলেট। সিলেটের চা, জলঢুপি-আনারস, কমলার খ্যাতি বিশ্বজোড়া। সিলেটিদের ঐতিহ্যবাহী খাবার হল সাতকরা গুরুর মাংস দিয়ে খেতে সবাই পছন্দ করেন । বাংলাদেশের জাতীয় মসজিদের খতীব উবায়দুল হক জালালাবাদী, এবং সব চাইতে বেশী পীর ও বুযুর্গ সিলেটে। বাংলদেশ কওমি মাদ্রাসার চেয়ারম্যান ছিলেন গোহর পুরী হুজুর (রহঃ) বর্তমানে যুবায়ের আহ্মাদ সাহেব উভয় জন সিলেটের কৃতি সন্তান। এছাড়া ও সিলেট শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন বিয়ানীবাজারের সন্তান গোলাম কিবরিয়া তাপাদার । আল্লামা ফুলতলী সাহেব ক্বিবলা উনিও সিলেটের সন্তান। 

বাংলাদেশের বিশিষ্ট রাজনিতিবিদ জনাব এম সাইফুর রহমান, আবুল মাল আবদুল মুহিত, বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী জনাব নুরুল ইসলাম নাহিদ, এনাম চৌধুরি,  দেওয়ান ফরিদ গাজী, আবদুস সামাদ আজাদ, শাহ এস এম কীবরিয়া , হুমায়ূন রাসিদ , সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত , সৈয়দ মহসিন আলী, আব্দুস শহিদ, এম ইলিয়াস আলী, মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ,  এম মান্নান, সুলতান মনসুর উনাদের সকলেরই জন্ম সিলেটে ।  নাম না জানা আরও  অনেক কৃতি সন্তান রয়েছেন।  তারেক জিয়ার স্ত্রী  জুবায়দা ও সিলেটের মেয়ে । বাংলাদেশের সেনাবাহিনীর প্রথম চীফ অব কমান্ড এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রথম প্রধান মেজর জেনারেল এম এ রব বীর উত্তম।

পৃথিবীর সবচেয়ে বড়গ্রাম বানিয়াচং তাও সিলেটে।  বাংলাদেশের প্রথম সার কারখানা ছিল সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে এন,জি,এফ,এফ (NGFF ) লিঃ। আরও আছে ছাতকের  সিমেন্ট কারখানা।  আাশা ব্যাংকের  প্রতিষ্টাতা ড.শফিকুল ইসলাম ও ইনডেবার ব্যাংক প্রতিষ্টাতা ড. রফিকুল ইসলাম আমাদের সিলেটের ।

হাকালুকি হাওর

প্রখ্যাত ব্যক্তিত্ব সাহিত্যিক সৈয়দ শাহনূর

পিতা: সৈয়দ নূর  

কর্ম: মধ্যযুগের শ্রেষ্ট কবি। ১৮১৯ সালে “নূর নছিহত” নামক সুবৃহৎ পুথি রচনা করেন। পুথির পৃষ্টা সংখ্যা ৩০২, গানের সংখ্যা ১০৮, ধাঁধাঁর সংখ্যা ৪১।

অন্যান্য গ্রন্থ : রাগনূর, সাত কন্যার খান৷
মৃত্যু: ১৮৫৫৷ তাঁর মাজার নবীগঞ্জ উপজেলার জালালসাপ গ্রামে অবস্থিত৷

কাজী মুহম্মদ আহমদ
জন্মঃ ১৮৩০ সালে মৌলভীবাজার জেলার ­ধউপাশা গ্রামে৷

কর্মঃ সিলেট বিভাগের প্রথম ইতিহাস লেখক৷ ১৮৮১ সালে জেলার কাজী নিযুক্ত হন৷ আঞ্জুমানে ইসলামিয়া স্থাপন করে এর সেক্রেটারীর দায়িত্ব পালন করেন৷ ১৮৮৫ সালে বাংলা ভাষায় সিলেটের গ্রন্থ শ্রীহট্ট দর্পন রচনা করেন৷

আশরাফ হোসেন
পিতা: মুন্সী জওয়াদ উল্লাহ৷
জন্ম: ১৮৯৯ সালে কমলগঞ্জ উপজেলার রহিমপুর গ্রাম৷
কর্ম: সিলেট বিভাগের লোক সাহিত্যের পথিকৃত৷ তাঁর রচিত গ্রন্থ সিলহটের ইতিহাস, মনিপুরের লড়াই, শাহজালালের কিচ্ছা ইত্যাদি৷ তাঁর সংগৃহীত মরমী গানের মধ্যে রয়েছে শাহ হাজির আলির হাজিরতরান এবং সাধক কবি রাধারমনের রাধারমন সংগীত৷
মৃত্যুঃ ১৯৬৫ সালের ২৪ জানুয়ারী৷

উনারা সিলেটের কৃতি সন্তান ।


প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ঘেরা আমাদের সিলেটের মাটি। সিলেটের রয়েছে গ্যাস তেল আর চুনাপাথর। সুরমা নদীর পাড়ে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী আমাদের আলি আমজাদের ঘড়ি, আছে জাফলং, বিছনাকান্দি, লালখাল, রাতারগুল সোয়াম্প ফরেস্ট, ভোলাগঞ্জ জিরো পয়েন্ট। মাধবকুন্ড,  লাউয়ারছড়া জাতীয় উদ্যান, হাকালুকী হাওড়, টাঙ্গুয়ার হাওড় আরও আছে অসংখ্য চা বাগান। সিলেটকে চায়ের দেশ বলা হয়। শ্রীমঙ্গলকে চায়ের রাজধানী বলা হয় । আমাদের সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলার রঘুনন্দন পাহাড়ে অবস্থিত।

বর্তমান বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সুসাইটির চেয়ারম্যান হাফিজ মুজমদার (এম পি) । সিলেটের সীমান্তিক এর চিপ পেট্টন আহমদ আল কবির সিলেট এর। বিশ্ব দরবারে সিলেটের লোকসাহিত্য তুলে ধরে আন্তর্জাতিক ভাবে ব্যাপক প্রসংসিত হন চৌধুরী গোলাম আকবর। এই গোলাম আকবর কে বাদ দিয়ে বাংলাদেশের লোকসাহিত্য কল্পনা করা যায় না।
আশরাফ হোসেন সাহিত্যরত্ন ছিলেন বিখ্যাত ঐতিহাসিক গবেষক এবং লোক সাহিত্যিক।। তাছাড়া এদেশের অবহেলিত চলচ্চিত্র শিল্প কে ঋণী করে রেখেছে সালমান শাহ ও হেলাল খান। বর্তমানে হালের জনপ্রিয় নায়িকা মাহিয়া মাহি হচ্ছেন সিলেটী ছেলের বউ।

বৃটেনে প্রভাবশালী ও অনুপ্রেরণাদায়ী ১০০ বাঙালীর তালিকায় স্হান পেয়েছেন সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার ১৩ জন বৃটিশ বিয়ানীবাজারী। ষষ্ঠ বারের মত ব্রিটেনে প্রভাবশালী ও অনুপ্রেরণাদায়ী ১০০ বাঙালীর তালিকা প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ-বাংলাদেশি পাওয়ার অ্যান্ড ইন্সপাইরেশন সংক্ষেপে বিবিপিআই ফাউন্ডেশন।

পি. আর. দাস (ভানু) সিলেটের কৃতী একজন ফুটবল খেলোয়াড় কাম কোচ৷ শেরেবাংলা কাপ ফুটবলে তাঁর কোচিং এ সিলেট চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল৷ পাকিস্তান আমলে সম্ভবত চট্টগ্রাম টীমের হয়ে পশ্চিম পাকিস্তানের টিম কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়া দলে ছিলেন তিনি৷ তৎকালীন রেলওয়ে ও মোহামেডানে খেলেছিলেন তিনি৷ স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলে ডাক পেয়েও যেতে পারেন নি, কেননা তখন শীলং এ ছিলেন৷ অনেকে বলেন সিলেট শহরের ফুটবলের উত্থানের অন্যতম রূপকার তিনি৷


সুরমা পারে যে ঘড়ি দিয়েছিলেন নবাব আলী আমজাদ উনার জন্ম সিলেটে।
এশিয়ার সবচে বড় বাড়ি সিলেটে, সেটা হচ্ছে গোলাপগঞ্জের শিলঘাটে, আখন্দ বাড়ি যার আয়তন ৩০০ একরের উপরে, আরেকটি তথ্য ভারত বর্ষের প্রথম রাজনৈতিক নেত্রী ছিলেন সিলেটের গোলাপগঞ্জের বেগম জুবেদা রহিম চৌধুরী তিনি নেহেরুর সহকর্মী ছিলেন। বিশ্বের সর্বপ্রথম বাতাস চালিত মোটরসাইকেল আবিস্কারক হাফেজ নুরুজ্জামান।
বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গর্ভণর বিশিষ্ঠ অর্থনীতিবিদ ডঃ ফরাস উদ্দিন৷ বর্তমানে জাতিসংঘে নিয়োগ কর্তা হিসেবে কর্মরত।  বিশিষ্ঠ অর্থনীতিবিদ বাংলাদেশের অর্থনীতি উন্নয়ন বোর্ডের চেয়াম্যান ডঃ খালেকুজ্জামান ৷ বিষিষ্ঠ অর্থনীতিবিদ অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান ৷ বিশিষ্ঠ অর্থনীতিবিদ সাবেক সচিব BNP স্তায়ীকমিটির সদস্য খালেদা জিয়ার উপদেষ্ঠা ইনাম আহমেদ চৌঃ ৷ আলিম কুলের মুকুটহীন সম্রাট বিশ্বখ্যাত আলেম যিনি মক্কা শরীফে ইমামে ভুল দরে দিয়েছিলেন, আল্লামা মুশাহিদ বায়মপুরী (র)।

প্রকৃতি অপার হস্তে সাজিয়েছে সিলেটকে, নান্দনিক সৌন্দর্য্যরে এক কল্পিত রাণী যেন সিলেট।

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.